জাতীয়সর্বশেষ

সৌমিত্র শেখর ক্ষমতায় থেকেও গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষা করেছে আওয়ামী লীগ

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর দে বলেছেন, আওয়ামী লীগ ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর ২০১৪, ২০১৮ ও সর্বশেষ ২০২৪ সালে নির্বাচন হয়েছে। ক্ষমতায় থেকেও গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষা করেছে আওয়ামী লীগ। বিএনপি মনে করেছিলো বাইরের কোনো দেশ এসে তাদের ক্ষমতায় বসিয়ে দিবে। কিন্তু এরকম ধারণা ভুল। বাংলাদেশের ভাগ্য সবসময় তাদের জনগণই নির্ধারণ করে।
শনিবার (২০ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবের এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভার আয়োজন করে এডুকেশন রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফোরাম।
তিনি বলেন, যে গণতন্ত্রের জন্য আমরা দেশ স্বাধীন করেছি তা আজ সুসংহত। কিন্তু নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য আজকে চেষ্টা করা হচ্ছে। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বঙ্গবন্ধু পারতেন দেরিতে নির্বাচন দিতে। কিন্তু তিনি ৭৩ সালেই নির্বাচন আয়োজন করেছিলেন। সেই নির্বাচনের পর অন্য নির্বাচন আসার আগেই বঙ্গবন্ধুকে তারা হত্যা করে।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমদাদুল হক চৌধুরী বলেন, স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রের নির্বাচন যেভাবে হওয়ায় উচিত এবারের নির্বাচন ঠিক তেমনই হয়েছে। এতো সুন্দর, সুশৃঙ্খল ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পরও ভোট কেন ৪০ শতাংশ? এমন প্রশ্ন সবার। আমাদের ভোটার তালিকা হয়েছে ৭-৮ বছর আগে। অনেক ছাত্র, পেশাজীবী বিদেশে চলে যান। নির্বাচনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অনেক মানুষ থাকে; সাংবাদিক, আইনশৃঙ্খলাবাহিনী, ভোটের সঙ্গে জড়িত তারা ভোট দেওয়ার সুযোগ পায় না। বিএনপি-জামায়াত অনেক মানুষকে টাকা দিয়েছে শুধু ভোট দিতে না যাওয়ার জন্য।
বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. কামরুল আলম খান বলেন, ৬৯ এর নির্বাচনে সকল দলের অংশগ্রহণের পরও ভোট পড়েছিলো পঞ্চাশ শতাংশের কিছু বেশি। সেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্য ছিলো। এবার জামায়াত-বিএনপি অগ্নিসন্ত্রাস করে মানুষকে ভোট কেন্দ্রে আসতে বাধা দিয়েছে তারপরও ৪১ শতাংশ মানুষ ভোট দিয়েছে। এটাই প্রমাণ করে এই নির্বাচনে মানুষের অংশগ্রহণ ও সমর্থন ছিলো। বিপুল সংখ্যক স্বতন্ত্র প্রার্থীর অংশগ্রহণ প্রমাণ করে এই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে।
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বদরুজ্জামান ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুল জব্বার খান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *