রাজনীতিসর্বশেষ

স্বতন্ত্রে কুপোকাত তিন প্রতিমন্ত্রী

ভোটের শুরু থেকেই এবার অনুমেয় ছিল লড়াইটা হবে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্রপ্রার্থীদের মধ্যে। হলোও তাই। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত স্বতন্ত্রপ্রার্থীরা জয় পেয়েছেন ৫৬ আসনে। আরও ২০টির মতো আসনে ফলাফল ঘোষণা এখনো বাকি। সাবেক ও বর্তমান প্রতিমন্ত্রী, একাধিকবারের সংসদ সদস্যরাও ধরাশায়ী হয়েছেন স্বতন্ত্রপ্রার্থীদের কাছে।
বর্তমান সরকারের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, বেসরকারি বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী এবং পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য স্বতন্ত্রপ্রার্থীদের কাছে হেরেছেন।
হবিগঞ্জ-৪ (মাধবপুর-চুনারুঘাট) আসনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী ব‍্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের কাছে প্রায় এক লাখ ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন মাহবুব আলী। সুমন পেয়েছেন এক লাখ ৬৯ হাজার ৯৯ ভোট। নৌকা প্রতীকের মো. মাহবুব আলী পেয়েছেন ৬৯ হাজার ৫৪৩ ভোট। অর্থাৎ, ৯৯ হাজার ৫৫৬ ভোট বেশি পেয়েছেন ব্যারিস্টার সুমন। নানান কারণে আলোচিত ও সারাদেশের মানুষের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করা ব্যারিস্টার সুমন ভোটের মাঠেও বাজিমাত করেছেন।
ঢাকার ২০টি আসনের মধ্যে এবার আলোচিত ছিল ঢাকা-১৯ আসন। সবার ধারণা ছিল সাবেক সংসদ সদস্য ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী মুরাদ জং ও বর্তমান প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমানের সঙ্গে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। কিন্তু সবাইকে ভুল প্রমাণ করে আলোচনায় না থাকা আরেক স্বতন্ত্রপ্রার্থী সাইফুল ইসলাম চমক দেখিয়ে জয়ী হয়েছেন। প্রতিমন্ত্রীর অবস্থান তৃতীয়।
ট্রাক প্রতীকে সাইফুল ইসলাম ৮৪ হাজার ৪১২ ভোট পেয়ে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্রপ্রার্থী তালুকদার মো. তৌহিদ জং (মুরাদ) ঈগল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭৬ হাজার ২০২ ভোট। বর্তমান এমপি ও প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান পেয়েছেন ৫৬ হাজার ৩৬১ ভোট।
যশোর-৫ (মণিরামপুর) আসনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী ইয়াকুব আলীর কাছে হেরেছেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য। তিনি পেয়েছেন ৫৫ হাজার ৫৮৭ ভোট। ইয়াকুব আলী ৬০ হাজার ৯৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *