ভারতে তৃতীয় টিকা হিসেবে স্পুটনিক-ভি অনুমোদন

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার জানিয়েছে, সংক্রমণের হার উচ্চতর রেকর্ড হওয়ায় সেখানে জরুরি ব্যবহারের জন্য রাশিয়ার স্পুটনিক-ভি কোভিড -১৯ ভ্যাকসিনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে এবং কিছু বড় শহরে হাসপাতালের বিছানা সক্ষমতাও বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। খবর এএফপির।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার শট এবং কোভাক্সিনের পরে ভারত অনুমোদিত তৃতীয় স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিনটি ভারতীয় সংস্থা বায়োটেক উৎপাদন করছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, অনুমোদন দেওয়ার জন্য বিশেষজ্ঞ প্যানেলের (এসইসি) সুপারিশগুলো গৃহীত হয়েছে।

ল্যানসেটে প্রকাশিত সবশেষ পরীক্ষায় দেখা গেছে, কোভিড-১৯ রোগের বিরুদ্ধে ৯২ শতাংশ সুরক্ষা দেয় স্পুটনিক-ভি।

কোভিশিল্ড ও কোভ্যাক্সিন মিলিয়ে ভারতে এখন পর্যন্ত ১০ কোটি ডোজ করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে।

এমন সময় স্পুটনিক-ভি টিকার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে, যখন ব্রাজিলকে ছাড়িয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্ত দেশ ভারত।

দেশটিতে এ যাবত এক কোটি ৩৫ লাখ মানুষ প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে পজিটিভ হয়েছেন। সংক্রমণের দিক থেকে ভারত এখন কেবল যুক্তরাষ্ট্রের পরেই।

যুক্তরাষ্ট্রে তিন কোটি ১০ লাখ লোকের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর ব্রাজিলে আক্রান্তের সংখ্যা এক কোটি ৩৪ লাখ।

মস্কোর গামালেয়া ইনস্টিটিউট তৈরি করেছে স্পুটনিক-ভি টিকা। চূড়ান্ত পরীক্ষার ফল প্রকাশের আগেই টিকা দেওয়া শুরু করায় প্রথমে এটির কার্যকারিতা নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছিল।

কিন্তু বিজ্ঞানীরা বলছেন, এটির উপকারিতা খুবই সুস্পষ্ট। কার্যকারিতা নিয়েও আর কোনো প্রশ্ন তৈরি হয়নি।

স্পুটনিভ-ভি টিকার অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টের এক পোস্টে বলা হয়েছে, বিশ্বের দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারত। স্থানীয় পর্যায়ের তিনটি ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় পজিটিভ ফল আসায় ষাটতম দেশ হিসেবে তারা এই টিকার জন্য নিবন্ধন করেছে। ৩০০ কোটি জনসংখ্যার ৬০টি দেশে স্পুটনিক-ভি টিকার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »