‘কঠোর লকডাউনে’ দৌলতদিয়ায় ফেরি পারের অপেক্ষায় যাত্রী ও চালকরা

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সারা দেশে আজ থেকে এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। কিন্তু লকডাউনের বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়ায় ফেরিঘাটের টিকিট কাউন্টারে যাত্রী ও গাড়ির চালকদের ভিড় দেখা গেছে। সেখানে উপেক্ষিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি।

সরেজমিনে বুধবার সকাল ৬টার দিকে দেখা যায়, লকডাউনের কারণে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। পারাপারের আশায় প্রাইভেটকার ও মাইক্রোচালকরা যাত্রী নিয়ে অপেক্ষা করছেন।

চালকদের মধ্যেই নেই সচেতনতার বালাই। মাস্ক ছাড়াই তারা কাউন্টারে দাঁড়িয়ে আছেন। লকডাউনের মধ্যে টিকিট কাউন্টার বন্ধ রাখায় দীর্ঘ সময় আটকে থেকে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তারা।

বেনাপোল  থেকে আসা প্রাইভেটকারচালক রানা সেহেরির পর জরুরি কাজের জন্য মানিকগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হয়েছি ভোরে। দৌলতদিয়া ঘাটে এসে দেখি ফেরি চলাচল বন্ধ, কাউন্টারে কোনো লোক নেই।

রোজা রেখে নদী পারের অপেক্ষায় আটকে থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

বরিশালের পিরোজপুর কাউখালী এলাকার মাইক্রাবাসের যাত্রী বাবু বলেন, ছোটবোন খুব অসুস্থ। একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে ভোর ৩টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাটে এসেছি। এসে শুনি ফেরি বন্ধ রয়েছে। টিকিটও দেওয়া বন্ধ রয়েছে। রোগী নিয়ে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) ফিরোজ শেখ  রাতেই গোয়ালন্দ মোড় ও ঘাট এলাকার সব ধরনের পণ্যবাহী ট্রাক পার করা হয়েছে। এখন ঘাটে কোনো ট্রাক নেই। প্রশাসনের নির্দেশে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এখন  লকডাউন জেনেও মানুষ যদি গাড়ি নিয়ে ইচ্ছা মতো চলে আসে তাহলে আমাদের কিছু করার নেই বলে জানান এ কর্মকর্তা।

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সারা দেশে আজ থেকে এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। কিন্তু লকডাউনের বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়ায় ফেরিঘাটের টিকিট কাউন্টারে যাত্রী ও গাড়ির চালকদের ভিড় দেখা গেছে। সেখানে উপেক্ষিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি।

সরেজমিনে বুধবার সকাল ৬টার দিকে দেখা যায়, লকডাউনের কারণে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। পারাপারের আশায় প্রাইভেটকার ও মাইক্রোচালকরা যাত্রী নিয়ে অপেক্ষা করছেন।

চালকদের মধ্যেই নেই সচেতনতার বালাই। মাস্ক ছাড়াই তারা কাউন্টারে দাঁড়িয়ে আছেন। লকডাউনের মধ্যে টিকিট কাউন্টার বন্ধ রাখায় দীর্ঘ সময় আটকে থেকে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তারা।

বেনাপোল  থেকে আসা প্রাইভেটকারচালক রানাসেহেরির পর জরুরি কাজের জন্য মানিকগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হয়েছি ভোরে। দৌলতদিয়া ঘাটে এসে দেখি ফেরি চলাচল বন্ধ, কাউন্টারে কোনো লোক নেই।

রোজা রেখে নদী পারের অপেক্ষায় আটকে থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

বরিশালের পিরোজপুর কাউখালী এলাকার মাইক্রাবাসের যাত্রী বাবু বলেন, ছোটবোন খুব অসুস্থ। একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে ভোর ৩টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাটে এসেছি। এসে শুনি ফেরি বন্ধ রয়েছে। টিকিটও দেওয়া বন্ধ রয়েছে। রোগী নিয়ে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) ফিরোজ শেখ  রাতেই গোয়ালন্দ মোড় ও ঘাট এলাকার সব ধরনের পণ্যবাহী ট্রাক পার করা হয়েছে। এখন ঘাটে কোনো ট্রাক নেই। প্রশাসনের নির্দেশে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এখন  লকডাউন জেনেও মানুষ যদি গাড়ি নিয়ে ইচ্ছা মতো চলে আসে তাহলে আমাদের কিছু করার নেই বলে জানান এ কর্মকর্তা। print sharing button

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »