উত্তর সিটিতে সড়ক কেটে মেরামতে অনীহা

প্রথমে ছিল দক্ষিণখান ইউনিয়ন। পরে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নতুন ১৮টি ওয়ার্ডে যুক্ত হয় এলাকাটি। নতুনভাবে ওয়ার্ডে যুক্ত হলেও সেখানে তেমন পৌঁছায়নি উন্নয়নের ছোঁয়া। নতুন ওয়ার্ড কাউন্সিলররা কিছু সড়কে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগালেও বেশির ভাগই রয়ে গেছে উন্নয়নের বাইরে।

অনেক সড়কের কার্পেট উঠে গেছে। আবার অনেক সড়কে দেখা দিয়েছে গর্ত। আর এ সব সড়কই এবার উন্নয়ন কাজের জন্য কেটেছে ওয়াসা। মাটির নিচ দিয়ে পানির লাইন টানার জন্য কয়েক শ মিটার দীর্ঘ রাস্তা কেটে উন্নয়ন কাজ করার পর দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও তা মেরামত করছে না কেউ। অনেক সড়কের প্রায় অর্ধেক কেটে কাজের পর তা কোনো রকম মাটি দিয়ে ফেলে রাখা হয়েছে। কার্পেটিং বা কংক্রিটের ঢালাই না দেওয়ার ফলে কাটা ঐ অংশ দিয়ে চলাচল করতে পারছে না যানবাহন। এমনকি কিছু কিছু সরু সড়কে এমন এলোমেলোভাবে মাটি ফেলে রাখার কারণে হাঁটার মতো অবস্থাও নেই। আবার কিছু কিছু জায়গায় মাটি স্তূপ করে রাখা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতাধীন পূর্ব গাওয়াইর, প্রেম বাগান, আমতলা, মোল্লাবাড়ি মাজার রোড, আইনুছবাগের বেশির ভাগ সড়কের কাটা অংশে এমন মাটি পড়ে আছে। কাজ শেষ হওয়ার কয়েক মাস পেরিয়ে গেলেও কেটে রাখা রাস্তা মেরামত করা হচ্ছে না। কোথাও কোথাও রাস্তা খুঁড়ে মাটির স্তূপ রাখা হয়েছে রাস্তায়ই। আইনুছবাগ এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, সরু সড়ক কাটার পরে সড়কের বেশির ভাগ অংশের ওপর এখনো কংক্রিটের টুকরো পড়ে আছে। ঢালাই না দিয়ে মাটি দেওয়ায় ঐ এলাকার সড়কে চলাচল করা যাচ্ছে না। এই এলাকার বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম জানান, পুরো এলাকায় ওয়াসা রাস্তা কেটে ফেলে রেখেছে। উন্নয়ন কাজ করতেই পারে। কিন্তু সড়কগুলো তো ঠিক করতে হবে। কিন্তু সে ব্যাপারে কারোরই নজর নেই। সেবা সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয় না করে কাজ করার কারণে এমনটি হচ্ছে।

একই এলাকার আরেক বাসিন্দা জাকির হোসাইন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এমনিতেই এই এলাকার সড়কের অবস্থা খুবই বেহাল। সেখানে খোঁড়াখুঁড়ির পর এভাবে সড়কে মাটি ফেলে রাখার কোনো মানে হয় না। ঠিকাদার রাস্তা কাটার পরে তার কি আর কোনো দায় নেই?

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এই এলাকায় ওয়াসার পানি লাইন স্থাপনের ঠিকাদার হিসেবে কাজ করছেন মিলন হোসেন। তার তত্ত্বাবধায়নে এ কাজ চললেও বেশির ভাগ সড়কে এমন বিশৃঙ্খল অবস্থা বিরাজ করছে। সড়কের এমন বেহাল অবস্থা ও সিটি করপোরেশনের কাছ থেকে সড়ক কাটার অনুমতি নেওয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, সব নিয়ম মেনেই সড়ক কাটা হয়েছে। আর সব ধরনের অনুমতিই আছে। এ বিষয়ে উত্তর সিটি করপোরেশনের অঞ্চল (৭) এর নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাকাব্বীর আহমেদ বলেন, ‘কয়েকবার তাদের সতর্ক করা হয়েছে। অনেক সড়কে অনুমতি ছাড়াই তারা সড়ক কেটেছে। আমরা অবশ্যই যারা এ কাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »