মিয়া ভাইয়ের মৃত্যুর গুজব, ভিডিও বার্তায় যা বললেন ফারুকের স্ত্রী

ঢাকাই চলচ্চিত্রের মিয়া ভাইখ্যাত অভিনেতা ও ঢাকা-১৭ আসনের সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে গত ২১ মার্চ থেকে আইসিইউতে তিনি। কিন্তু হঠাৎ করেই বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এ অভিনেতার মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। কে বা কারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় এই ভুয়া খবরটি। ফারুকের এই মৃত্যুর খবর নিয়ে গুজব না ছড়ানোর অনুরোধ করেছেন তার পরিবার।

ফারুকের জ্ঞান ফিরেছে

ফারুকের স্ত্রী ফারহানা ফারুক ভিডিওতে বলেন, ‘আমি ফারহানা ফারুক। আপনাদের সবার প্রিয় নায়ক ফারুকের স্ত্রী। আমরা গত ৪ তারিখে সিঙ্গাপুরের এসেছি। ফারুক মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে আইসিইউতে আছে। আমি কিছুদিন আগে যে (ফারুকের মৃত্যুর গুজব) খবরটি পেয়েছি সেটি আমার খুব কষ্ট দিয়েছে। আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করছি- আপনারা কখনোই এই ধরণের খবর প্রচার করবেন না। আল্লাহর রহমতে আপনাদের দোয়ায় ফারুক ভালো আছে। হাত-পা নড়াচড়া করছে। সে এখন একটু উন্নতির দিকে।’

তিনি আরও বলেন, ‘অবশ্যই ফারুক একটি খারাপ পরিস্থিতি পার করছে। কিন্তু আমি জানি- আমার দেশের মানুষ ফারুককে এতো আদর করে, এতো ভালোবাসে তাদের ভালোবাসার জন্য ফারুক আবার বাংলাদেশে ফেরত যাবে। ভিত্তিহীন খবর আমার উপর, আমার বাচ্চাদের উপর এবং আমার পরিবারের উপর কি যে খারাপ প্রভাব পড়ে তা বোঝানো যাবে না। আমার বাচ্চারা বাংলাদেশে কি যে খারাপ অবস্থার মধ্যে আছে ফারুক অবশ্যই আপনাদের মাঝে ফিরবে।

মৃত্যুর গুজব নিয়ে ফারুকের পুত্র রোশান হোসেন পাঠান গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এটার ভয়ই করছিলাম। খ্যাতিমান কেউ অসুস্থ হলেই কিছু লোক মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে দেয়। হয়তো আব্বুর বেলায়ও তাই হবে। হলোও তাই।’

গত ১৫ মার্চ খিচুনি হওয়ার পর ফারুকের মস্তিষ্কে একটি সিজার করা হয়েছিল। এতে তার নড়াচড়া এবং কথা বলা সীমিত হয়ে পড়েছিল। এরপর আইসিইউতে পাঠানো হয়। ১৮ মার্চ অবস্থার উন্নতি হলে কেবিনে পাঠানো হয়। ২১ মার্চ অচেতন হয়ে পড়লে আবারও আইসিইউতে পাঠানো হয় এ অভিনেতাকে।

১৯৪৮ সালে ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন ফারুক। ১৯৭১ সালে এইচ আকবর পরিচালিত ‘জলছবি’ সিনেমায় অভিনয়ের মাধ্যমে ঢাকাই সিনেমায় অভিষেক হয়েছিলে তার। বাংলা সিনেমার অন্যতম জনপ্রিয় এ অভিনেতা ২০১৯ সালে ঢাকা-১৭ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »