শেষদিনের প্রচারে উত্তাপ ছড়াচ্ছেন মিঠুন-জয়া

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আজ বৃহস্পতিবার চতুর্থ দফার প্রচারের শেষদিন। প্রচারে মাঠ গরম করতে তৈরি তৃণমূল-বিজেপি দুই শিবির। এদিনই প্রথমবারের জন্য কলকাতায় বিজেপি”র হয়ে প্রচারে নামছেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। আর তৃণমূলের হয়ে হাওড়ায় প্রচার চালাবেন সমাজবাদী পার্টির রাজ্যসভার সংসদ সদস্য অভিনেত্রী জয়া বচ্চন।

বিজেপিতে যোগদানের পর গ্রামাঞ্চলে প্রচার চালালেও মিঠুন কখনও কলকাতায় প্রচারে নামেননি। প্রথমবারের মতো বেহালা থেকে নিজের প্রচার কাজ শুরু করবেন তিনি। বিজেপিকে ফাঁকা মাঠ ছাড়তে নারাজ তৃণমূল। এজন্য আরও চারদিন জয়াকে প্রচারে ধরে রাখছে তারা।

বুধবার রাতে এক বিবৃতিতে তৃণমূল জানিয়েছে, প্রথমে দু-তিনদিন প্রচার করার কথা বললেও আরও চারদিন তৃণমূলের হয়ে প্রচার চালাবেন বলিউডের ‘ধন্যি মেয়ে’। কলকাতা নিকটবর্তী দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার আসনগুলোতে প্রচারে বৃহস্পতিবার শেষদিনে সব পক্ষই নিজেদের স্টার ক্যাম্পেনারদের ময়দানে নামিয়েছেন।

বেহালা, টালিগঞ্জ, যাদবপুর এলাকায় বিভিন্ন দলের হেভিওয়েটরা প্রচার করেছেন। বৃহস্পতিবার শেষদিন বেহালায় প্রচার করতে পারেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যসভার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও বেহালা পূর্বে রত্না চট্টোপাধ্যায়ের হয়ে ভোট চাইতে আসতে পারেন তিনি।

মিঠুন চক্রবর্তী তার প্রচার শুরু করবেন তৃণমূলের গড় বেহালা থেকে। বৃহস্পতিবার সকালে বেহালা পশ্চিমের হরিসভা এলাকা থেকে তার রোড শো শুরু হবে। সেখান থেকে বেহালা পূর্ব ও পশ্চিমের সংযোগস্থল আদর্শ পল্লী এলাকায় তার কর্মসূচি শেষ হবে।

রোড শোতে তার সঙ্গে থাকবেন বেহালা পূর্বের প্রার্থী পায়েল সরকার ও বেহালা পশ্চিমের প্রার্থী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। এরপর মিঠুন যাবেন টালিগঞ্জে বাবুল সুপ্রিয়র হয়ে প্রচার করতে। টালিগঞ্জের টেকনিশিয়ান স্টুডিও থেকে শুরু হবে মিঠুনের রোড শো।

অন্যদিকে মিঠুনের মতোই বৃহস্পতিবার দিনভর তৃণমূলের হয়ে হাওড়ার বিধানসভা আসনগুলোতে প্রচারে ব্যস্ত থাকবেন জয়া। বেলা সোয়া ১১টায় শিবপুর বিধানসভায় ক্রিকেটার প্রার্থী মনোজ তিওয়ারির হয়ে হাওড়া পুর নিগমের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে একটি রোড শো করবেন। সেই কর্মসূচি শেষ করে হাওড়া দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী নন্দিতা চৌধুরীর হয়ে প্রচারে অংশ নেবেন অমিতাভ বচ্চনের স্ত্রী জয়া।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »