দুমকিতে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব

দুমকিতে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। প্রতিদিনই আসছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী। ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে এরই মধ্যে পাঁচটি ইউনিয়নে মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। স্বাস্থ্যকর্মীরা খাবার স্যালাইনসহ অন্য ওষুধ বিতরণ করছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১ মাসে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অন্তত ১০০ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী ভর্তি করা হয়েছে। আরো শতাধিক রোগী প্রাথমিক চিকিত্সা নিয়ে বাড়ি চলে যান।রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, হাসপাতালে স্যালাইনসহ প্রয়োজনীয় ওষুধ না পেয়ে বাইরে থেকে কিনতে হচ্ছে। লেবুখালী ইউনিয়নের পূর্বকার্তিক পাশা গ্রামের ফাতিমা আক্তার (৭৫) ভর্তি হলেও অবস্থা দেখে প্রাথমিক চিকিত্সা নিয়ে বাড়িতে চলে যান। রোগীর স্বজনরা জানান, হাসপাতালে মহিলা ও পুরুষের দুইটি কক্ষে ৩১টি বেড থাকলেও কলেরা ও ডায়রিয়া রোগীর মধ্যে অন্য রোগীও ভর্তি আছে।

হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স আজিজুল হক জানান, প্রত্যেক ডায়রিয়া রোগীরকে ১৮-২০ হাজার এমএল স্যালাইন দেওয়া লাগছে। প্রাথমিকভাবে ভর্তি হওয়ার পরে হাসপাতাল থেকে স্যালাইন সংকটের কারণে ১ হাজার এমএল স্যালাইন দেওয়া হচ্ছে। রোগীরা বেশির ভাগ মুরাদিয়া, আংগারিয়া, পাংগাশিয়া ও পার্শ্ববর্তী উপজেলার নলুয়া ইউনিয়নের। ৩১ শয্যার হাসপাতালে ভর্তিকৃত অন্য রোগীর পাশাপাশি ডায়রিয়ার রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় শয্যা সংকট দেখা দিয়েছে। বেড না থাকায় হাসপাতালের মেঝেতে রোগীরা বিছানা পেতে চিকিত্সা নিচ্ছে।

কলেরার রোগী বেড়ে যাওয়ায় বেড সংখ্যা কম থাকায় হাসপাতালের মেঝেতেও সংকুলান না হলে অন্য কোথাও রোগীদের চিকিত্সার জন্য ক্যাম্প করা হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মীর শহীদুল হাসান শাহীন বলেন, পাঁচটি ইউনিয়নে মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। স্বাস্থ্যকর্মীরা ডায়রিয়ার খাবার স্যালাইনসহ অন্য ওষুধ বিতরণ করছেন। যাতে এ ধরনের সমস্যায় পরতে না হয়। ডায়রিয়ার রোগীরা ভর্তি হলে সুস্থ হতে সময় লাগে পাঁচ থেকে সাত দিন। এ সময় তিনি স্যালাইনসহ প্রয়োজনীয় ওষুধ সংকটের কথা স্বীকার করে জানান, স্যালাইন সংকটের বিষয়ে পটুয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসের মাধ্যমে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরে চাহিদা প্রেরণ করা হয়েছে। তা এলে রোগীদের দেওয়া হবে।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »