মধুচন্দ্রিমায় দিয়া মির্জার সঙ্গী কে?

সময়টা আমুদেই কাটছে বলিউডের আবেদনময়ী নায়িকা দিয়া মির্জার।  বিয়ের পর স্বামীকে নিয়ে আনন্দে সময় কাটাচ্ছেন।  দিয়া কাজের ব্যস্ততা ঘুচিয়ে জীবনসঙ্গীকে নিয়ে একান্তে সময় কাটাচ্ছেন মালদ্বীপে।  সেখানে সমুদ্র পাড়ে স্বামী বৈভবের সঙ্গে ছবি তুলে ফেসবুকে পোস্ট করছেন।
মধুচন্দ্রিমায় দিয়া-বৈভবের সঙ্গী আরও একজন।  তার ছবিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছেন দিয়া।  এ নিয়ে নেটিজেনরা প্রশ্ন তুলছেন মধুচন্দ্রিমায় দিয়া-বৈভবের সঙ্গী এ আবার কে?

হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে জানা গেছে, স্বামী বৈভবের আগের সংসারের মেয়ে সামায়রাকে মধুচন্দ্রিমায় নিয়ে গেছেন দিয়া মির্জা।

দেড় বছরের একাকিত্ব ঘুচিয়ে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি নতুন ভালোবাসাকে বরণ করেন দিয়া।  দিয়া-বৈভব দুজনেরই দ্বিতীয় বিয়ে এটি। বিয়ের পর সবকিছু গুছিয়ে মধুচন্দ্রিমায় গেছেন এই জুটি।

সমুদ্রের পাড়ে আকাশি, হালকা নীল ও সাদা রঙের পোশাকে একের পর এক ছবি পোস্ট করছেন দিয়া। একটি ছবিতে দিয়ার সঙ্গে ধূসর জাম্পস্যুটে দেখা গেল সামায়রাকেও। বাবার বিয়েতেও উপস্থিত ছিল সে, বরণ করে নিয়েছে নতুন মাকে।
বৈভবের সাবেক স্ত্রী সুনয়না জানিয়েছেন, দিয়ার সঙ্গে বৈভবের বিয়েতে তিনি খুশি। বৈভব আর সুনয়নার মেয়ে সামায়রাকে আপন করে নিয়েছেন দিয়া। এমনকি তাঁকে সঙ্গে নিয়ে মালদ্বীপে মধুচন্দ্রিমায় গিয়ে রীতিমতো নজির স্থাপন করলেন দিয়া। আর এজন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ প্রশংসা কুড়াচ্ছেন এই অভিনেত্রী।
২০০০ সালে মিস এশিয়া প্যাসিফিক ইন্টারন্যাশনাল হয়ে বলিউডে পা রেখেছিলেন দিয়া। অভিনয় দিয়ে কেড়েছিলেন নিযুত দর্শকের নজর। তবে জ্বলে উঠতে পারেননি যেভাবে প্রত্যাশা করা হয়েছিল।

শুরুতে সাড়া ফেললেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে অনেকটাই ফ্যাকাশে হয়ে পড়েছিলেন তিনি।  অভিনয়ে হয়ে পড়েন অনিয়মিত। ২০১৪ সালে ব্যবসায়িক অংশীদার সাহিল সংঘকে বিয়ে করেছিলেন দিয়া। পাঁচ বছরের মাথায় হলো ছন্দপতন। ২০১৯ সালের আগস্টে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন দিয়া ও সাহিল।  এরপর থেকে একাকী সময় কাটাচ্ছিলেন।  কদিন আগে হঠাৎ বিয়ের কথা জানান।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »