চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ তদন্তে কমিটি

নিয়োগ বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা ইউপি চেয়ারম্যান এবং চাঁদখানা এইউ দাখিল মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হাফিজার রহমান হাফির বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কেএম রহুল আমিনের নির্দেশে মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক অর্থ ও প্রশাসন আবু নইমকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

এদিকে চাকুরীর দেওয়ার নামে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা নেওয়ার অভিযোগে চেয়ারম্যানকে এক নম্বর বিবাদী করে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন প্রতারণার স্বীকার ভুক্তভোগী প্রার্থীগণ।   গত ৭ জানুয়ারি দৈনিক ইত্তেফাকের অনলাইন ভার্সনে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এটিএম রহুল আমিন জানান, কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা এ ইউ দাখিল মাদ্রাসায় বিভিন্ন পদে নিয়োগ দেওয়ার জন্য গত ৩/১২/২০১৮ ইং তারিখ একটি জাতীয় দৈনিকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এবং চাঁদখানা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান হাফি বিভিন্ন চাকুরী প্রার্থীকে মাদ্রাসায় নিয়োগ দেওয়ার কথা বলে প্রায় দশ থেকে পনের জন চাকরী প্রার্থীর কাছ প্রায় ৩০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে তা আত্মসাৎ করেন মর্মে চাকুরী প্রার্থীগণ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন।

তিনি আরো জানান, নিয়োগ বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অনিয়মের জন্য অভিযোগে চাঁদখানা এইউ দাখিল মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও চাঁদখানা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান হাফির বিরুদ্ধে মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কেএম রহুল আমিনের নির্দেশে মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের পরিচালক অর্থ ও প্রশাসন আবু নইমকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, চাঁদখানা এইউ দাখিল মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও চাঁদখানা ইউপি চেয়ারম্যান, মাদ্রাসার একজন অভিভাবক সদস্য এবং মাদ্রাসা সুপারকে ঢাকা মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে তলব করেছেন।

জানা গেছে, চাঁদখানা ইউপি চেয়ারম্যান এবং চাঁদখানা ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান বিভিন্ন চাকুরীপ্রার্থীর কাছ থেকে মাদ্রাসার বিভিন্ন পদে নিয়োগের কথা বলে প্রায় ৩০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এ ঘটনায় আরিফুর রহমান এবং খবির উদ্দিন নামে দুজন ভুক্তভোগী পৃথক পৃথকভাবে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আউয়াল লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোকসানা বেগম বলেন, চাঁদখানা এইউ দাখিল মাদ্রাসার নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে আনিত অভিযোগ সম্পর্কে জেলা প্রশাসক স্যারকে অবহিত করেছি। তিনি আরো বলেন, এ বিষয়ে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে ।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »