লালমনিরহাটে সালিশে ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা

লালমনিরহাটের সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের হরিণের চওড়া গ্রামে পাওনা টাকা আদায়ের ঘটনায় সালিশি বৈঠকে আব্দুল হালিম সরকার (৫৮) নামে এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। গত মঙ্গলবার উপজেলার তিস্তা নদীর চর হরিণের চওড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আব্দুল হালিম সরকার হারাগাছ থানার পাইকারটারী গ্রামের মৃত ছমছ উদ্দিনের ছেলে এবং মালা বিড়ি ফ্যাক্টরির মালিক।

নিহতের পরিবার জানায়, লালমনিরহাটের তিস্তার চর হরিণের চওড়া এলাকার মজিবরের কাছে তামাক বিক্রির ১৩ লাখ টাকা পেতেন দর্জিপাড়া গ্রামের চান মিয়া। প্রায় দেড় মাস আগে এ নিয়ে একবার বৈঠকও হয়। সেখানে ৫ জানুয়ারি টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন মজিবর। সে অনুযায়ী লিখিত অঙ্গীকারনামাও তৈরি করা হয়। নির্ধারিত দিন অনুযায়ী গত মঙ্গলবার রাতে সই টাকা আদায়ের জন্য চান মিয়া আব্দুল হালিম সরকারসহ আরো দু-তিনজনকে সঙ্গে নিয়ে টাঙরীর বাজারে গেলে প্রতিপক্ষ মজিবর ও তার সমর্থক ফজলু এলফাত, রতন, ফজু এবং আরো ২০-২৫ জন যুবক তাদের ধরে নিয়ে বৈঠকে বসেন। বৈঠক চলাকালে দুই পক্ষের বাগিবতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষের লোকজন ব্যবসায়ী আব্দুল হালিম সরকারকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। মুমূর্ষু অবস্থায় হালিমকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

নিহতের ছেলে মোহন মিয়া বলেন, মঙ্গলবার রাতে বাড়িতে সালিশি বৈঠক বসেছিল। বিরোধ মেটাতে সেখানে বাবাও ছিলেন। বৈঠকে বাবার তোলা একটি প্রস্তাবকে কেন্দ্র করে হট্টগোল শুরু করে বিক্ষুব্ধরা। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে হট্টগোল বন্ধে অনেক অনুরোধ করেছি। কিন্তু ফজু ও ফজলু নামে দুই জনসহ অনেকে আমার বাবাকে টার্গেট করে মারধর করতে থাকে। এতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে বাবার মৃত্যু হয়।

লালমনিরহাট সদর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহা আলম জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। তামাক ব্যবসার পাওনা টাকার বিরোধ থেকে এ ঘটনা ঘটেছে বলেও তিনি জানান।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »