ফারুকির ‘শনিবার বিকেল’ নিয়ে ‘ঝিল কুটুম’র প্রতিবাদী ক্যাম্পেইন

বিশ্বজয়ী বাংলাদেশি চলচ্চিত্র পরিচালক মোস্তফা সরওয়ার ফারুকি তার সাহসী কর্মকাণ্ডের জন্য বরাবরই বিতর্কিত হয়ে আসছেন গণমাধ্যমে। যার অন্যতম উদাহরণ তার সর্বশেষ সিনেমা ‘শনিবার বিকেল’ কিংবা ‘স্যাটারডে আফটারনুন’। গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে ঘটা সন্ত্রাসী হামলাকে উপজীব্য করে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটি দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে পারে– এমন আশঙ্কায় চলতি বছরের জানুয়ারিতে ‘শনিবার বিকেল’ এর মুক্তি আটকে দেয় তথ্য মন্ত্রনালয়ের অধীনে কাজ করা বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সরবোর্ড। সেন্সর বোর্ডের এ সিদ্ধান্তের বিপরীতে গত ফেব্রুয়ারিতে আপিল করেছে চলচ্চিত্রটির অন্যতম প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। আপিলের পরও ছাড়পত্রের বিষয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি সেন্সর বোর্ড।

জাজ মাল্টিমিডিয়া, ছবিয়াল ও ট্যানডেম প্রোডাকশন প্রযোজিত শনিবার বিকেলের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ১২টি দেশের স্বনামধন্য অভিনেতারা। যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছেন- ফিলিস্তিনের অভিনেতা ইয়াদ হুরানি, ইউরোপের এলি পুসো, সেলিনা ব্ল্যাক, বাংলাদেশি অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা, জাহিদ হাসান, মামুনুর রশীদ এবং ভারতের অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়।

এছাড়াও নানান গণমাধ্যম সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমাটি এখন পর্যন্ত মিউনিখ, মস্কো, সিডনি, বুসান, প্যারিসের ভেসুল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালসহ বিশ্বের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত এবং প্রশংসিত হয়ে এসেছে। যার মধ্যে মস্কো চলচ্চিত্র উৎসবে অংশ নিয়ে শনিবার বিকেল দুইটি ইন্ডিপেনডেন্ট জুরি পুরস্কার অর্জন করেছে। মস্কো ইন্টারন্যশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানিত ‘এ গ্রেড ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’।

এতসব আন্তর্জাতিক পুরষ্কার অর্জনের পরও ছবিটি সরকারের কর্তাপ্রধানদের মন গলাতে পারেনি। অবশ্য সেন্সরবোর্ডের এই নিষেধাজ্ঞার পেছনের কারনটিও বেশ বিতর্কিত। কেননা বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও পাকিস্তান সরকারের করা ‘চলচ্চিত্র সেন্সরশীপ আইন-১৯৬৩’ অনুযায়ী বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের মানদণ্ড বিচার করে আসছে।

এইসব কারনেই ‘শনিবার বিকেল’ চলচ্চিত্রটি বাংলাদেশে মুক্তির মুক্তির পক্ষ্যে জনমত গঠনের জন্য বিচিত্র এক উদ্যোগ নিয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় সিনেমা ক্যাফে ‘ঝিল কুটুম’। নতুন বছর অর্থাৎ ২০২১ সালের পহেলা জানুয়ারী থেকে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত ‘ঝিল কুটুম’ নিজেদের সকল অতিথিকে ‘শনিবার বিকেল’ এর অফিসিয়াল টি-শার্টটি একদম বিনামূল্যে উপহার দিচ্ছে বলে সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন কুটুম এক্সপ্রেসের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা এবং স্বাধীন চলচ্চিত্র নির্মাতা ‘সিজু খান’

গণমাধ্যমে ইতিমধ্যেই বেশ আলোচনায় চলে এসেছে ঝিল কুটুমের এই সিনেম্যাটিক অফারটি। যার সূত্র ধরে এবার এই ক্যাম্পেইনে যুক্ত হলেন দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র এবং বিজ্ঞাপন নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী, আদনান আল রাজীভ, আশফাক নিপুণ এবং কানের ফিপ্রেস্কি জুরিবোর্ডের সদস্য ও চলচ্চিত্র সমালোচক সাদিয়া খালিদ রীতি।

৫ জানুয়ারি ‘শনিবার বিকেল তথা স্যাটারডে আফটারনুন’ এর নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা এবং জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার বিজয়ী নির্মাতা এবং আলোচিত ওটিটি প্ল্যাটফর্ম চরকি’র সিইও রেদোয়ান রনি এই প্রতিবাদী টি-শার্টটি গায়ে দিয়ে ক্যাম্পেইনে অংশ নেবেন বলে নিশ্চিত করেছেন সিজু খান।

তিনি আরও জানান, এই টি-শার্টের ডিজাইনে প্রদর্শিত প্রতিবাদী কনসেপ্টটি আমরা শনিবার বিকেলের প্রযোজক, পরিচালকের অনুমতি নিয়েই বানিয়েছি; এবং শুধু এই টি-শার্টই নয় এর পাশাপাশি আমরা নুরুল আলম আতিকের ‘নতুন সিনেমা, সময়ের প্রয়োজন’ শীর্ষক একটি সিনেমার বই এবং এক মাসের নেটফ্লিক্স সাবস্ক্রিপশনও বিনামূল্যে উপহার দিচ্ছি নিজেদের সব অতিথীদেরকে’। হাতিরঝিলে অবস্থিত ‘ঝিল কুটুম’ রেস্তোরাঁটি মূলত ‘কুটুম এক্সপ্রেস’ নামক একটি বহুমূখী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সিস্টার কনসার্ন।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »