বরিশালে যুবদলের অন্তঃকোন্দলে বিএনপির দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর

বরিশাল মহানগর যুবদলের দুই নেতার অন্তঃকোন্দলের জেরে দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া হামলা ও হাতাহাতিতে যুবদলের ১০জন কর্মী আহত হন। শুক্রবার রাত ১০টার দিকে নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হলস্থ বরিশাল জেলা ও মহানগর বিএনপির কার্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন কর্মীসভা উপলক্ষে রাতে অনানুষ্ঠানিক মতবিনিয়ম সভার আয়োজন করে জেলা ও মহানগর যুবদল। রাত ৯টার দিকে সভা চলাকালীন কথা কাটাকাটি শুরু হয় মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ হাসান মামুন এবং যুগ্ন সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম জাহানের মধ্যে। এরপর সভার মধ্যেই মাসুদ হাসানের অনুসারী হিসেবে পরিচিত মহানগর যুবদলের প্রচার সম্পাদক বশির, ঝুনু, রাহাতসহ আরও কয়েকজন হট্টগোল শুরু করে। তারা সেখানে থাকা চেয়ার ছুড়ে মারে মাজহারুল ইসলামের দিকে। এতে আহত হন তিনি।

পরবর্তীতে মাজহারুল ইসলামের অনুসারীরা মাসুদ হাসান মামুনের অনুসারীদের ওপর চড়াও হলে দু পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয় এবং কার্যালয়ের চেয়ার ভাঙচুর করা হয়। এসময় সেখানে উপস্থিত জেলা যুবদলের সভাপতি পারভেজ আকন বিপ্লব দুই পক্ষকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। এসময় ঘটনাস্থলে পুলিশ ও সাংবাদিকেরা উপস্থিত হলে মাসুদ হাসান মামুন তার অনুসারীদের নিয়ে দ্রুত কার্যালয় চত্ত্বর ত্যাগ করেন। এরপর মাজহারুল ইসলামের অনুসারীরা বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়ক (সদর রোড) আটকে মিছিল করার চেষ্টা করলে পুলিশী বাঁধায় তা পন্ড হয়ে যায়।

মহানগর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান পলাশ জানান, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ জেলা যুবদলের নেতাদের সাথে পার্টি অফিসে মতবিনিময় করছিলো। এসময় আমরা কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের কাছে কিছু সময় নিয়ে তাদের সাথে কথা বলতে বসি। এসময় হঠাৎ করে মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ হাসান মামুনের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী বাহিনী আওয়ামী লীগের ইন্ধনে আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে এবং পার্টি অফিস ভাঙচুর করেছে। ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রাখতে এই হামলা চালানো হয়েছে আমাদের ওপর।

মাজহারুল ইসলাম জাহান বলেন, সামনে আমাদের কর্মীসভা উপলক্ষে মতবিনিময় সভাতে অংশগ্রহণ করি আমরা। সেখানে দলের সম্পাদক মাসুদ হাসানের বিভিন্ন স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ করা হলে তিনি উত্তেজিত হয়ে উঠেন এবং তার অনুসারীদের নিয়ে আমার উপর হামলা চালায়। এতে আমি সহ যুবদলের ১০ কর্মী আহত হয়েছে। ঘটনার ব্যাপারে মাসুদ হাসান মামুনের ফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। তবে হাতাহাতির ব্যাপারে জেলা যুবদল সভাপতি পারভেজ আকন বিপ্লব উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, এক ঘরে একাধিক ভাই থাকলে একটু ঝগড়া হতেই পারে। এটা বড় কোন ঘটনা নয়। এদিকে ঘটনার পরপরই বিএনপি কার্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »