কাগুজে’ মোহামেডানের সামনে আজ শক্তিশালী আবাহনী

সাতসকালে ঢাকা শহর কুয়াশাচ্ছন্ন ছিল। অ্যামেরিকান অ্যাম্বেসির বিপরীতে নতুন বাজার, ১০০ ফুট রাস্তা ধরে এগিয়ে গেলে ইউনাইটেড ইউনিভার্সিটির মাঠে কুয়াশার চাদর সরিয়ে শিশির ভেজা ঘাসে মোহামেডানের বাস। খেলোয়াড়রা একে একে নামলেন। ইংলিশ হেড কোচ শন লেন, ম্যানেজার ইমতিয়াজ আহমেদ নকিব, সহকারী কোচ আলফাজ আহমেদ, জাপানী অধিনায়ক উরু নাগাতা, পরে আসলেন দলনেতা আবু হাসান চৌধুরী প্রিন্স। খাতা-কলম হাতে খেলোয়াড়দের নিয়ে কোচ মাঠে নেমে গেলেন। ফেডারেশনে কাপে আজ সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে মোহামেডান প্রথম ম্যাচ খেলবে আবাহনীর বিপক্ষে।

শুরুতেই বড় ম্যাচ। মোহামেডানের জন্য বড় ধাক্কা হতে পারে। কারণ মোহামেডান এখন মাঠের সেই শক্তিশালী দল না। যাদের সাধারণ নৈপুণ্যে মুগ্ধতা ছড়াত। মোহামেডানে এবারও যারা খেলবে তাদেরও সাধারণ দর্শকের চেনার কথা না। গত কয়েক বছর ধরে জাতীয় দলের জার্সিও পাচ্ছে না মোহামেডানের কোনো ফুটবলার। পেশাদার ফুটবলে এখনো শিরোপা পায়নি। ফেডারেশন কাপ ফুটবলে ২০০৯ সালে শেষ বার ফাইনাল খেলেছিল মোহামেডান, আবাহনীর বিপক্ষে। এরপর আর মোহামেডান ফাইনালের টিকিট পায়নি।

কাগজে-কলমে মোহামেডান এখন শক্তির বিচারে কাগজে মোহামেডান হয়ে গেছে। তারপরও এই দলটির খেলোয়াড়রা কর্মকর্তাদের প্রেরণায় উজ্জীবিত হন, মনের মধ্যে ফুটবলের বাঘ-সিংহের লড়াইয়ের অনুভূতি পান। তাই হয়তো খেলোয়াড়রা মনে করেন মোহামেডা-আবাহনী মানেই বাড়তি উদ্দীপনা। আলাদা একটা অনুভূতির পরশ। দলের কোচ শন লেন বললেন, ‘এই দলটা তো তরুণ। এদেরকে গড়ে তোলার কাজটা কঠিন হলেও করতে হবে।’

এই ইংলিশ কোচ দেশের ফুটবলের সব ক্লাবের শক্তি আর সামর্থ্যের কথা জানেন, সেখানে মোহামেডান কতটা পিছিয়ে আছে। তারপরও মোহামেডানকে একটা ভিত গড়ে দিতে মাথাটা খাটিয়ে চলেছেন। এই কোচের পাঁচ সন্তান। জমজ দুই কন্যা। সবাইকে পেছনে রেখে অখ্যাত ফুটবলাদের নিয়ে বিখ্যাত মোহামেডানের সমর্থকদের মাঠের খেলা দিয়ে প্রশান্তি দিতে চান। গ্যালারি ভরা দর্শক মোহামেডানের ছিল। এখন নেই। অন্তত আর যাই হোক, মোহামেডান সমর্থকরা যেন মাঠে আসেন সেই চেষ্টা ইংলিশ কোচের।

ফেডকাপে আবাহনীরও আজ প্রথম ম্যাচ। মোহামেডানকে কাগজে বলা হলেও আবাহনীর শক্তিটা তুলনায় অনেক বেশি। এই দলে শিরোপার স্বাদ পাওয়া ফুটবলারের সংখ্যাটাও কম না। নাসির চৌধুরি, শহিদুল আলম সোহেল, সোহেল রানা, প্রাণতোষ, রায়হান হাসান, জীবন, রুবেল, সাদ উদ্দিনদের সঙ্গে নতুন শক্তি ব্রাজিলিয়ান ফ্রান্সিসকো রদ্রিগেজ ডি সুজা নুতন এসেছেন, সঙ্গে আগের মৌসুমের হাইতির কেরভিন্স ফিলস বেলফোর্ট এবং আবার ফিরেছেন এশিয়ান কোটায় আফগানিস্তানের ডিফেন্ডার মাসিহ সাইঘানি। কোচ সেই পর্তুগালের মারিও লেমস। লড়াইটা হবে পতুগিজ ফুটবল আর ইংলিশ ফুটবলের।

Rupantor Television

A IP Television Channel

12 thoughts on “কাগুজে’ মোহামেডানের সামনে আজ শক্তিশালী আবাহনী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »