কানাডায় করোনার নতুন ভাইরাসে এখনও কেউ আক্রান্ত হননি

করোনা মহামারী এখন বিশ্বব্যাপী নতুন মোড় নিয়েছে, ধরন পাল্টেছে এ প্রাণঘাতী ভাইরাস।

ইতিমধ্যে যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের কয়েকটি দেশে দেখা দেয়া নতুন ধরনের (স্টেইন) করোনাভাইরাস কানাডায় এখনও সংক্রমণ ঘটায়নি।

কানাডার জনস্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, এই ভাইরাসে কেউ সংক্রমিত হয়েছে কিনা তা চিহ্নিত করতে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তারা।

পাবলিক হেলথ অন্টারিওর একজন মুখপাত্র বলেছেন, সার্স কোভ ২-এর গতিপ্রকৃতি অনুসন্ধান এবং পর্যালোচনায় তাদের ‘জেনোমিক সার্ভিলেন্স প্রোগ্রাম’ আছে।

এ পর্যন্ত তারা ৪ হাজার ৩০০টির বেশি নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করেছেন। তার মধ্যে যুক্তরাজ্যে যে প্রকৃতির করোনাভাইরাসের শনাক্তের কথা বলা হচ্ছে, তার একটিও এখানে পাওয়া যায়নি।

ওই মুখপাত্র বলেছেন, ভাইরাসের গতিপ্রকৃতি বিশ্লেষণটি কেবল আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারে এমন ব্যক্তির ‘ভাইরাসের উপস্থিতি’ পরীক্ষার মধ্যেই সীমিত থাকে না। নতুন সংক্রমণের উৎস খুঁজে বের করতে ভাইরাসের নমুনার জেনেটিক ম্যাটেরিয়াল বিশ্লেষণ করা হয়।

যুক্তরাজ্যে নতুন ধরনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পর কানাডাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। করোনাভাইরাস নিয়ে নতুন করে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

নতুন দেশের সঙ্গে আলাপকালে কানাডার বিভিন্ন শহরে বসবাসরত বাংলাদেশিরা নতুন ভাইরাসের সংক্রমণের খবরে নিজেদের আতঙ্কের কথা প্রকাশ করেন।

কানাডার প্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা থেরেসা ট্যাম সোমবার এক টুইটবার্তায় বলেন, যুক্তরাজ্যে দেখা দেয়া নতুন ধরনের ভাইরাসটি ইতিমধ্যে কানাডায় ঢুকেছে কিনা তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ভাইরাসের জেনেটিক মিউটেশন নতুন কিছু নয়। কোভিড মহামারীর শুরু থেকে কয়েকবারই এ ধরনের মিউটেশিন হয়েছে। করোনার নতুন এই প্রকৃতিটি (স্ট্রেইন) সত্যিই অধিকতর সংক্রামক কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য আরও তথ্য দরকার বলে ড. থেরেসা ট্যাম উল্লেখ করেন।

অন্টারিওর মেডিকেল অফিসার ড. ডেভিড উইলয়াম বলেছেন, অন্টারিও প্রভিন্সের কোথাও নতুন ভাইরাসের সংক্রমণের কোনো ঘটনা শনাক্ত হয়নি। তবে তারা তীক্ষ্ণ নজর রাখছেন।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লাখ ২১ হাজার ৫০৯ জন, মৃত্যুবরণ করেছেন ১৪ হাজার ৪২৫ এবং সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৩১ হাজার ৫৬১ জন।

কানাডার প্রধান চারটি প্রদেশ অন্টারিও, ব্রিটিশ কলম্বিয়া, আলবার্টা এবং কুইবেকে উদ্বেগজনকভাবে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। কোভিড রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে হাসপাতাল ও নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে ব্যাপক হারে চাপ পড়ছে।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »