অনলাইন বা অ্যাপের মাধ্যমে সিনেমা দর্শকদের ফেরানোর চেষ্টা

সিনেমা হলে দর্শক ফেরানো এখন দুরাশা। কিছু ছবি শহুরে দু-একটা হলে মুক্তি পাওয়ার পর প্রিমিয়ারে দর্শক হৈ চৈ আর ফেসবুকে সত্য-মিথ্যা পোস্ট চলছে ঠিকই, কিন্তু সেই অভিনয় বা ছল দিয়ে বর্তমান সিনেমা বাজারের মহামন্দাকে এড়ানো যায় না। কারণ আদতে করোনাকালীন এই সংকটে সিনেমা হলে দর্শক ফেরানোটা এক জটিল অঙ্ক। তাই অনলাইন বা বিকল্প ব্যবস্থা এখন খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে।

সম্প্রতি দেশবরেণ্য নির্মাতা তানভীর মোকাম্মেলের নতুন চলচ্চিত্র ‘রূপসা নদীর বাঁকে’ মুক্তি পায়। এই ছবিটিও চলতি মাসে অনলাইনে দর্শনীর বিনিময়ে প্রদর্শনীর উদ্যোগ নিচ্ছেন নির্মাতা-কলাকুশলীরা।

আগামী ২৫, ২৬ ও ২৭ ডিসেম্বর তানভীর মোকাম্মেলের রূপসা নদীর বাঁকে চলচ্চিত্রটি অনলাইনে জুমের মাধ্যমে দর্শনীর বিনিময়ে প্রদর্শিত হবে। শোয়ের সময়সূচি হচ্ছে প্রতিদিন বাংলাদেশ সময় সকাল ১১টা, বিকেল ৪টা, সন্ধ্যা ৭টা ও রাত ১০টা।

ছবিটি প্রসঙ্গে এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে রূপদানকারী অভিনেতা জাহিদ হোসেন শোভন বলেন, ‘তানভীর মোকাম্মেলের ছবি আসলে গুরুত্বপূর্ণ সময়ের দলিল। এসব ছবিতে কাজ করাটাও নিজের একটা আত্মতৃপ্তির জায়গা তৈরি করে। ছবিটি এই সংকটময় সময়েও আমরা পাবলিক লাইব্রেরিতে টানা প্রদর্শনী করেছি। দারুণ সাড়া পেয়েছি। বিকল্প প্রদর্শনীর অংশ হিসেবেই এবারে এই জুম অ্যাপের মাধ্যমে দেখানোর ব্যবস্থা করা। আমার মনে হয়, এমন অনেক বিকল্প ব্যবস্থার ভেতর দিয়েই আমাদের চলচ্চিত্রে দর্শক ফেরানোর যে সংগ্রাম তা অব্যাহত রাখতে হবে।’

চলচ্চিত্রটি জুম অ্যাপের মাধ্যমে প্রদর্শনের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। এর আগে জুম অ্যাপের মাধ্যমে দর্শনীর বিনিময়ে লাইভ কনসার্ট হলেও সিনেমা প্রদর্শন এটিই প্রথম।

করোনাকালে অধিকাংশ চলচ্চিত্রই এখন খুঁজছে বিকল্প প্রদর্শনীর পথ। কিছুদিন আগে অনন্য মামুন তার নতুন ছবি ‘নবাব এলএলবি’ মুক্তি দিয়েছেন তাদের নিজস্ব অ্যাপে। যদিও অ্যাপের মাধ্যমে অনন্য মামুন অর্ধেক ছবি দেখিয়ে পরবর্তীতে বাকিটুক দেখানোর জন্য সিনেমা হলের সংযোগ তৈরির চেষ্টা করেছেন এখানে। কিন্তু সুরক্ষিতভাবে, নির্ভাবনায় সিনেমা হলের নিয়মিত দর্শকদের হলে ফিরতে হয়তো আরো কিছু সময় লেগে যাবে।

উল্লেখ্য, রূপসা নদীর বাঁকের কাহিনি একজন ত্যাগী বামপন্থী নেতাকে নিয়ে। যাকে ১৯৭১ সালে রাজাকাররা হত্যা করেছিল। ২ ঘণ্টা ১৭ মিনিট দৈর্ঘ্যর চলচ্চিত্রটির কাহিনি ও চিত্রনাট্য রচনা করেছেন তানভীর মোকাম্মেল। চিত্রগ্রহণ করেছেন মাহফুজুর রহমান, সম্পাদনায় মহাদেব শী, শিল্প নির্দেশনা ও প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে ছিলেন উত্তম গুহ, আবহসংগীতে সৈয়দ সাবাব আলী আরজু, পোশাকে চিত্রলেখা গুহ ও মেকআপ করেছেন মোহাম্মদ আলী বাবুল। ছবিটির সহকারী পরিচালক হিসেবে রয়েছেন রানা মাসুদ, সৈয়দ সাবাব আলী আরজু ও সগীর মোস্তফা।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »