খুলনা-চট্টগ্রাম ফাইনাল আজ

শেষের দুয়ারে চলে এসেছে বঙ্গবন্ধু টি-২০ কাপ। ট্রফির ফয়সালার মঞ্চে এখন টুর্নামেন্টের সবচেয়ে ধারাবাহিক দল গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ও কাগজ-কলমে শক্তিশালী দলের তকমা পাওয়া জেমকন খুলনা। আজ ফাইনালে খুলনার মুখোমুখি হবে চট্টগ্রাম। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হবে বিকাল সাড়ে ৪টায়।

 

ধারাবাহিকতাই চট্টগ্রামের মূল অস্ত্র

লিগ পর্বে আট ম্যাচের সাতটি জয় ছিল চট্টগ্রামের। টুর্নামেন্টে ১০ ম্যাচ খেলে হার দুটিতে। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক (লিটন দাস, ৩৭০ রান) ও সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি (মুস্তাফিজুর রহমান, ২১ উইকেট) চট্টগ্রাম শিবিরের। সব মিলিয়ে টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত ধারাবাহিক মিঠুনের দল।

আজ ফাইনালে সেই ধারাবাহিকতাই আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে চট্টগ্রামকে। গতকাল কোচ সালাউদ্দিন বলছিলেন, ‘পুরা টুর্নামেন্টে আমাদের একটা ধারাবাহিকতা ছিল, এ ম্যাচটাও সেভাবে খেলতে পারলে আমাদের একটা ভালো সুযোগ থাকবে।’

তবে ফাইনালের মঞ্চে চাপ সামলানো, সিদ্ধান্ত গ্রহণকে গুরুত্ব দিচ্ছেন অভিজ্ঞ এই কোচ। সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘আগের ১০ ম্যাচ আপনি কী করেছেন, তা কিন্তু ফাইনালে যায়-আসবে না। ফাইনালে আপনি কীভাবে চাপটা নিচ্ছেন এবং কতটা ভালো সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন, সেটার ওপর নির্ভর করবে আপনার রেজাল্টটা কেমন হবে।’

লিগ পর্বে দুবারই খুলনাকে হারিয়েছিল চট্টগ্রাম। প্রথম কোয়ালিফায়ারে অবশ্য তাদের কাছে হেরেছিল দলটি। আজ ফাইনালে অভিজ্ঞতায় মাশরাফি-মাহমুদউল্লাহদের খুলনাকে এগিয়ে রাখলেও সালাউদ্দিনের আশা তার শিষ্যরা প্রয়োজন অনুযায়ী পারফর্ম করবে। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘যারা ফাইনালে আসছে, দুই দলেই কিন্তু বেশির ভাগই অভিজ্ঞ খেলোয়াড়। আমি মনে করি টি-টোয়েন্টি হচ্ছে অভিজ্ঞ প্লেয়ারের খেলা। এদিক থেকে খুলনা এগিয়ে।’

নিজেদের সামর্থ্যে ফোকাস খুলনার

সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের উপস্থিতিতেই টুর্নামেন্টের সেরা ও শক্তিশালী দলের ট্যাগ পেয়েছিল খুলনা। পরে সেখানে মাশরাফি বিন মুর্তজাও যুক্ত হয়েছেন। যদিও সামর্থ্য পারফরম্যান্স দেখাতে পারেনি দলটি। তার পরও ঠিকই ফাইনালে উঠে এসেছে। দারুণ ছন্দে থাকা ফাইনালের প্রতিপক্ষ চট্টগ্রামকে নিয়ে না ভেবে নিজেদের শক্তির ওপর ফোকাস করতে চান মাহমুদউল্লাহ। আজ সাকিবকেও মিস করবেন খুলনার অধিনায়ক।

লিটন-মুস্তাফিজদের নিয়ে গড়া চট্টগ্রাম নিয়ে ভাবতে চান না মাহমুদউল্লাহ। গতকাল বলেছেন, ‘তারা খুবই ভালো দল, সবাই জানে যে সৌম্য-লিটন খুব ভালো ব্যাটিং করছে। লিটন এই টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। ওদের বোলিং অ্যাটাক ভালো। তো আমার মনে হয় যে, ওদের প্রতি ফোকাস বেশি না করে আমরা আমাদের ফ্রি এবং আমাদের আত্মবিশ্বাসের ওপর যদি বিশ্বাসটা বেশি রাখি, তাহলে মনে হয় আমাদের জন্য ভালো হবে এবং দলের জন্যও ভালো।’

শ্বশুর অসুস্থ হওয়ার খবরে দল ছেড়েছিলেন সাকিব। ৯ ম্যাচে ১১০ রান, ৬ উইকেট নেওয়া এই বাঁহাতিকে আজ পাচ্ছে না খুলনা। ব্যাটিংটা যেমনই হোক বাঁ-হাতি স্পিনার সাকিবকে মিস করবে দলটি। মাহমুদউল্লাহর মতে, ফাইনালে যারা ভালোভাবে চাপ সামাল দিতে পারবে, তারাই ভালো করবে।

গতকাল বলেছেন, ‘ফাইনাল খেলায় আমার মনে হয় এগিয়ে রাখার বিষয়টা ওরকম ম্যাটার করে না। কারণ ফাইনালে অনেক প্রেসার সিচুয়েশন থাকে, অনেক ক্রাঞ্চ সিচুয়েশন থাকে। এই জিনিসগুলো যেই টিম ভালো হ্যান্ডেল করতে পারবে, আমি মনে করি যে তারাই সুবিধাজনক অবস্থানে থাকবে।’

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »