সিংগাইরে ভূমিহীনদের নামে বরাদ্দ জমিতে কারখানা

সিংগাইরে সরকারি খাস ও অর্পিত জমি এবং নদী দখল করে গড়া হচ্ছে কলকারখানা, বাড়িঘর, মার্কেট, দোকান ও রিসোর্ট সেন্টারসহ বাগানবাড়ি। সরকারি বিধিনিষেধ ভঙ্গ করে নদী সিকস্তি চর্চা দাগের জমিও ইতিপূর্বে ভূমি অফিস থেকে খারিজ করে নিয়েছে প্রভাবশালীরা। সরকারিভাবে বন্দোবস্ত পাওয়া ভূমিহীনদের জমিও তাদের দখলে। এমনকি ফোর্ডনগরে ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক উচ্ছেদ করা সরকারি খাস জমিও পুনরায় বেদখল হয়ে গেছে।

রোপণ করা গাছ কেটে ও সাইনবোর্ড ভেঙে ঐ জমি পুনরায় দখল করে বাড়িঘর তৈরি করেছেন এক ব্যক্তি। এদিকে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদার গত মঙ্গলবার সিংগাইরে ধলেশ্বরী নদী পরিদর্শনে এসে নদী দখল করে অবৈধ স্থাপনা দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এ সময় তিনি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শাহিনা হককে নদী দখলবাজদের বিরুদ্ধে অতি দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। পরবর্তীতে তিনি উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে নদীর অবৈধ দখল নিয়ন্ত্রণ, নদী দূষণ প্রতিরোধ ও নদীর নাব্যতা সংরক্ষণ বিষয়ে উপজেলা নদী রক্ষা কমিটির সঙ্গে মতবিনিময় সভায় অংশ নেন।

এলাকাবাসী বলেন, এর আগে ধল্লা ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে সমঝোতা করে একটি ফার্নিচার কোম্পানির মালিক ফোর্ডনগরে ধলেশ্বরী নদী থেকে বালু উত্তোলন করে নদীরপাড় ভরাট করে নিজ জমি ও ফ্যাক্টরিতে যাওয়ার জন্য সরকারি প্রকল্প ছাড়াই বেআইনিভাবে ২০ ফুট প্রশস্ত রাস্তা করেন। তখন প্রশাসন নীরব ছিল। প্রশাসনের ঐ নীরবতার জন্যই আজ মাহাবুব গং সরকারি জমি দখল করতে সাহস পেয়েছে। এছাড়া ঐ ফার্নিচার কোম্পানির কারখানার ভেতরে রয়েছে অন্তত দুই একর খাস এবং ভূমিহীনদের জমি। এছাড়া তারা বিশাল এলাকা জুড়ে নদীতে বালু ফেলে ভরাট করছে। তার মতোই শ্যামল নামে আরেক প্রভাবশালী ব্যক্তি ভূমিহীনদের নামে বন্দোবস্ত পাওয়া জমি দখল করে বাড়িঘর তৈরি করে ভাড়া আদায় করছেন।

 

সাইনবোর্ডে ভূমিহীনদের নাম থাকলেও বাস্তবে কেউ নেই। শ্যামলের দাবি, ক্রয়সূত্রে তিনি এই জমির মালিক। এ এলাকায়ই নুরানীপাড়া বহুমুখী সমবায় সমিতি লি: সাইনবোর্ড টাঙিয়ে একই কায়দায় সরকারি সম্পত্তিতে বাগান এবং মার্কেট তৈরি করে ভাড়া আদায় করছেন বলেও জানা গেছে। তবে ঐ সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সেক্রেটারি সাইফুল ইসলাম লিটনের দাবি—এলাকায় কোনো খাস জমি নেই। এ ছাড়া ফোর্ডনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে গিয়াস উদ্দিন এবং প্রায় ২ কোটি টাকা মূল্যের খাস জমিতে সীমানা দেওয়াল তৈরি করে দখলে আছেন আরেক ব্যক্তি।

অপরদিকে ‘ক’ তালিকাভুক্ত বলধারা বাজারে রাস্তার পাশের অর্পিত সম্পত্তি দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করছেন আরেক চক্র। এভাইে ডাউটিয়া বাজারের সরকারি রাস্তা দখল করে মার্কেট, দোকান ঘর ও বাড়ির সেফটি ট্যাঙ্ক করায় যান চলাচল মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটছে। সিংগাইর বাস স্ট্যান্ডের উত্তরদিকে টিঅ্যান্ডটির জমি দখল করে দোকান ঘর তৈরি করে ভাড়া আদায় করছেন টিঅ্যান্ডটির এক কর্মচারী।

 

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »