আ.লীগ-বিএনপির ভোটের লড়াইয়ে নেই জাতীয় পার্টি

ময়মনসিংহের গফরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে মনোনয়ন কিনেছে আওয়ামীগ ও বিএনপি। তবে, সময় শেষ হলেও মনোনয়ন নেননি জাতীয় পার্টির কোনো প্রার্থী। স্থানীয়দের ধারণা, জাতীয় পার্টি ছাড়াই জমে উঠবে এবারের পৌরসভা নির্বাচন।

দলীয় সিদ্ধান্তে মনোনয়ন নেননি বলে জানিয়েছেন স্থানীয় জাতীয় পার্টির নেতারা।

সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) গফরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে বর্তমান মেয়র এসএম ইকবাল হোসেন সুমন আওয়ামী লীগ থেকে দ্বিতীয়বারের মতো মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এদিকে বিএনপি থেকে মনোনয়ন পেয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহ আব্দুল্লাহ আল মামুন। এছাড়া ৯টি সাধারণ ওয়ার্ডে ২৬ জন ও সংরক্ষিত তিনটি ওয়ার্ডে পাঁচজন কাউন্সিলার পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার শামসুন্নাহার জানান, ১৯৯৯ সালে ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গফরগাঁও পৌরসভা গঠিত হয়। মোট ভোটার ২২ হাজার ২৯৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১০ হাজার ৮৬১ জন এবং নারী ভোটার ১১ হাজার ৪৩৫ জন। নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পূর্ণ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন।

তিনি আরও বলেন, প্রতিদিনই বিভিন্ন পদে প্রার্থীরা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করছেন। ১ ডিসেম্বর মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় ছিল। যাচাই-বাছাই হবে ৩ ডিসেম্বর এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১০ ডিসেম্বর। আগামী ২৮ ডিসেম্বর ১০টি কেন্দ্রের ৬৯টি কক্ষে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচনে জয়ী হলে জনগণের সেবা ও গফরগাঁও পৌরসভার উন্নয়নে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বর্তমান মেয়র এসএম ইকবাল হোসেন সুমন। একই প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বিএনপি থেকে মনোনয়নপ্রাপ্ত শাহ আব্দুল্লাহ আল মামুন।

গফরগাঁও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হালিম মানিক জানান, পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ পৌর ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সর্বসম্মতিক্রমে একক প্রার্থী হিসেবে বর্তমান পৌরসভার মেয়র, পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক এসএম ইকবাল কবীর সুমন মনোনয়ন কিনেছেন। আমরা শতভাগ আশাবাদী বিপুল ভোটে আওয়ামী লীগ জয়লাভ করবে।

গফরগাঁও উপজেলা বিএনপির সভাপতি এবি ছিদ্দিকুর রহমান বলেছেন, ভোট যদি নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হয়, তাহলে বিএনপির জয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।

এদিকে সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গফরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে ভোটারদের মাঝে নেই কোনো আনন্দ-উল্লাস। দলের ঐতিহ্য রক্ষায় বিএনপি থেকে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন আব্দুল্লাহ আল মামুন। তবে শেষ পর্যন্ত ভোটের মাঠে বিএনপি থাকবে কি-না, তা সংশয় রয়েছে ভোটারদের মাঝে।

একাধিক ভোটারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, যে সরকার ক্ষমতায় থাকে সেই দলের নেতাকর্মীদের আধিপত্য থাকে গফরগাঁওয়ে। এখানে বিরোধী দল নির্বাচনে এসে সুবিধা করতে পারে না। তাই এবারও আওয়ামী লীগের প্রার্থী নির্বাচিত হবে। তবে মেয়র পদে আমেজ না থাকলেও কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ভোটের লড়াইয়ে নির্বাচন কিছুটা জমতে পারে বলে ধারণা ভোটারদের।

নির্বাচনে জাতীয় পার্টির অংশগ্রহণ না করার কারণ জানতে গফরগাঁও উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মজিবর রহমানের মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »