বরিশালে ভাই-ভাবীকে কুপিয়ে জখম

বরিশালের হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামে ভাই-ভাবীকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে। শনিবার রাতে এই হামলার পর গুরুতর আহত দুলাল বাবুর্চি ও তার স্ত্রী নিলুফা বেগমকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে স্বজনরা। এদের মধ্যে দুলালের অবস্থা আশংকাজন।

তার বাম পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়েছে, এছাড়া শরীরে ১৫ থেকে ২০টি ধারালো অস্ত্রের কোপের চিহ্ন রয়েছে। আহত দুলাল বাবুর্চি ও হামলাকারী নুরু বাবুর্চি ঐ গ্রামের মৃত হাসেম বাবুর্চির ছেলে। নুরুর বিরুদ্ধে থানায় ডাকাতি, অস্ত্র এবং কুপিয়ে জখমের একাধিক মামলা রয়েছে। সম্প্রতি নুরু একটি অস্ত্র মামলায় ১৪ বছরের সাজা খেটে কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে ফের দাঙ্গা হাঙ্গামার পথ বেঁছে নেয়।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. খাইরুল ইসলাম জানান, রাতে দুলাল মোটর সাইকেলযোগে উপজেলার কাউরিয়া বাজার থেকে নিজ বাড়িতে যাচ্ছিল। বাড়িতে প্রবেশের সাথে সাথে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা তার ছোট ভাই নুরু ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে। সাথে সাথে দুলাল মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এরপর শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথাড়ি কোপাতে থাকে। তার বাম পা কুপিয়ে প্রায় বিচ্ছিন্ন করা হয়। এ সময় তার দুলালের স্ত্রী নিলুফা স্বামীকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে নুরু। তাদের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হিজলা থানার অফিসার ইনচার্জ অসীম কুমার সিকদার বলেন, নুরু সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। সম্প্রতি সে কারাগার থেকে মুক্ত হয়। এভাবে একাধিকবার কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে সে আবার পূর্বের চেহারায় ফিরে যায়। তার হাতে গ্রামের প্রায় ২৫ জন লোক আহত হয়। ঘটনার পরপরই পরিদর্শক (তদন্ত) ফারুক উল ইসলামের নেতৃত্ব পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নুরুকে আটকের চেষ্টা চলছে বলে জানান ওসি।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »