করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিনে আস্থা জরুরি :ডব্লিউএইচও

মহামারি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরির অগ্রগতি নিয়ে বিশ্বজুড়ে যখন উদযাপন চলছে, তখন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডবিস্নউএইচও) টিকাদান বিভাগের পরিচালক কেইট ও’ব্রায়েন বলেন, ‘মহামারির বিরুদ্ধে সবচেয়ে কার্যকর চিকিৎসাও জনসাধারণের অবিশ্বাসের কারণে ব্যর্থ হওয়ার ঝুঁকিতে পড়তে পারে। তাই সবার আগে ভ্যাকসিনে আস্থা অর্জন করতে হবে।’ সংবাদসূত্র : এএফপি, রয়টার্স ডবিস্নউএইচও’র বিশেষজ্ঞ শুক্রবার সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘একটি ভ্যাকসিন ফ্রিজার, রেফ্রিজারেটর অথবা অন্য কোথাও সংরক্ষিত রাখা হলে কিংবা ব্যবহার করা না হলে, এই মহামারি কমিয়ে আনতে কোনো সহায়তা করবে না।’ গত সোমবার মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট ‘ফাইজার’ এবং জার্মান জৈবপ্রযুক্তি কোম্পানি ‘বায়োএনটেক’র যৌথ উদ্যোগে তৈরি ভ্যাকসিন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ৯০ শতাংশ কার্যকর বলে ঘোষণা দেয়। ফাইজার এবং বায়োএনটেকের এই ভ্যাকসিনটি ৪০ হাজারের বেশি মানুষের দেহে শেষ ধাপের পরীক্ষায় রয়েছে। অন্তর্র্বর্তীকালীন পরীক্ষার ফলে ভ্যাকসিনটির ৯০ শতাংশ কার্যকারিতার প্রমাণ পাওয়ার তথ্য জানায় প্রতিষ্ঠান দুটি। শিগগিরই এই পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল পাওয়া যেতে পারে বলে জানিয়েছেন তারা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওই কর্মকর্তা ফাইজার এবং বায়োএনটেকের ভ্যাকসিনের অন্তর্র্বর্তীকালীন ফলকে ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’ বলে প্রশংসা করেছেন। একই সঙ্গে অন্য আরও বেশ কয়েকটি ভ্যাকসিনের শেষ ধাপের পরীক্ষার প্রাথমিক ফল শিগগিরই পাওয়া যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। কেইট ও’ব্রায়েন বলেন, ‘পূর্ণাঙ্গ তথ্য-উপাত্তে যদি দেখা যায়, এসবের একটি অথবা একাধিক ভ্যাকসিনের খুব বেশি কার্যকারিতা আছে; তাহলে মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এটি হবে সত্যিকারের সুসংবাদ।’ তিনি আরও বলেন, ‘কিন্তু মানুষ যদি ভ্যাকসিন গ্রহণে আগ্রহী না হয়, তাহলে বিশ্বজুড়ে ভ্যাকসিন ব্যবহার করে আমরা করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে সফল হতে পারব না।’ গত বছরের ডিসেম্বরে চীনে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের উৎপত্তি হওয়ার পর এ পর্যন্ত বিশ্বের দুই শতাধিক দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ‘ওয়ার্ল্ডোমিটার’র তথ্য মতে, এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনায় পাঁচ কোটি ৩৯ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত এবং ১৩ লাখ সাড়ে ১১ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে। পাশাপাশি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে তিন কোটি ৭৬ লাখের বেশি মানুষ। এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, করোনাভাইরাসের বেশ কয়েকটি ভ্যাকসিন তৃতীয় ধাপের পরীক্ষায় পৌঁছেছে। এসবের কোনো একটি ভ্যাকসিন কার্যকর প্রমাণিত হলে তা এই মহামারির লাগাম টানতে সহায়তা করতে পারে।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »