কলপাক থেকে মুক্ত, নিজ দেশে ফিরছেন জিম্বাবুইয়ান পেসার

নিজ দেশের হয়ে খেলার গৌরব বিসর্জন দিয়ে কলপাক চুক্তিকে বেছে নিয়েছিলেন জিম্বাবুয়ের ২৪ বছর বয়সী পেসার ব্লেসিং মুজারাবানি। চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্লাব নর্দাম্পটনশায়ারের সঙ্গে। যা শেষ করে দিয়েছিল তার সম্ভাবনাময় আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার।

তবে কলপাক চুক্তির ২ বছরের মধ্যেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার পথ খুলে গেলো ব্লেসিং মুজারাবানির সামনে। চলতি মাসের শেষদিকে পাকিস্তান সফরের দলে বিবেচিত হতে পারেন দীর্ঘদেহী এ পেসার। কেননা নর্দাম্পটনের সঙ্গে করা কলপাক চুক্তি থেকে মুক্তি পেয়ে গেছেন সাড়ে ছয় ফুট উচ্চতার মুজারাবানি।

২০১৮ সালে জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে ইংলিশ কাউন্টিতে নাম লেখান মুজারাবানি। স্থানীয় ক্রিকেটার হিসেবে খেলার সুযোগ নিতে বেছে নেন কলপাক চুক্তি। প্রাথমিকভাবে এই চুক্তি ছিল ২০২১ সাল পর্যন্ত। তবে তার আগেই মুজারাবানিকে কলপাক চুক্তি থেকে মুক্তি দিয়েছে নর্দাম্পটনশায়ার।

অমিত সম্ভাবনা নিয়ে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল মুজারাবানির। পরবর্তী সাত মাসের মধ্যেই জিম্বাবুয়ের জার্সিতে ১ টেস্ট, ১৮ ওয়ানডে ও ৬ টি-টোয়েন্টি খেলে ফেলেছিলেন তিনি। এরপরই সিদ্ধান্ত নেন কলপাক চুক্তি করে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমানোর। যা শেষ করে দেয় তার জিম্বাবুইয়ান ক্যারিয়ার।

কিন্তু এখন ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে এসেছে যুক্তরাজ্য। যার ফলে ২০২১ মৌসুমে কলপাক চুক্তি আর কার্যকর থাকবে না। তাই চুক্তির মেয়াদ এক বছর থাকলেও, মুজারাবানিকে আগেই মুক্ত করে দিয়েছে নর্দাম্পটনশায়ার। আর এ কারণেই এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার পথ খুলে গেলো তার সামনে।

চলতি মাসের শেষদিকে পাকিস্তান সফরে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলবে জিম্বাবুয়ে। শিগগিরই সে সফরের দল ঘোষণা করবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট। তার ঘরোয়া ক্রিকেটে ন্যাশনাল প্রিমিয়ার লিগে তাকাশিঙ্গার হয়ে খেলার সুযোগ পেয়েছেন মুজারাবানি। সেখানে নিজের ফর্মের প্রমাণ দিতে পারলে জাতীয় দলেও সুযোগ মিলতে পারে তার।

আর যদি সত্যিই জিম্বাবুয়ে দলে ফেরা হয় মুজারাবানির, তাহলে কলপাক থেকে ফেরা তৃতীয় জিম্বাবুইয়ান ক্রিকেটার হবেন তিনি। তার আগে সাবেক অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেলর এবং পেসার কাইল জার্ভিসও কলপাক চুক্তিতে কাউন্টি ক্রিকেটে খেলে এসেছেন।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »