সবকিছু স্বাভাবিক হলেই মুজিববর্ষের এশিয়া-বিশ্ব একাদশ সিরিজ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে ওলটপালট হয়েছে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনের সম্পূর্ণ সূচি। বিশ্বের সব দেশের খেলাধুলায়ই পড়েছে এর প্রভাব। ব্যতিক্রম নয় বাংলাদেশও। করোনার কারণে গত মার্চে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের প্রথম রাউন্ডের পর এখনও পর্যন্ত বাংলাদেশে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট শুরু করা যায়নি।

অথচ সবকিছু স্বাভাবিক থাকলে চলতি বছরটা ব্যস্ততম সময়ই কাটাতে হতো দেশের ক্রিকেটকে। যেখানে সূচিতে ছিলো এশিয়ার বাইরের বিশ্বের নামী তারকাদের এক দলে এনে বিশ্ব একাদশ ও বাকি খেলোয়াড়দের এক করে এশিয়া একাদশ সাজিয়ে দুইটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে হওয়ার কথা ছিল এ দুই ম্যাচ।

সে লক্ষ্যে সূচিও প্রকাশ করে ফেলেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এমনকি প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গেছিল দুই দলের খেলোয়াড় তালিকাও। গত ২১ ও ২২ মার্চ মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের দুই ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল। তার আগে ১৮ মার্চ আবার ছিল বিখ্যাত মিউজিশিয়ান এ আর রহমানের কনসার্টও। কিন্তু করোনার প্রকোপে পিছিয়ে গেছে সব।

এখন ধীরে ধীরে মাঠের ক্রিকেট ফেরানোর চেষ্টায় রয়েছে বিসিবি। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে দলীয় অনুশীলন। ক্যাম্পে ডাক পাওয়া খেলোয়াড়রা নিজেদের মধ্যে খেলেছেন দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ। আগামী রোববার (১১ অক্টোবর) থেকে শুরু হতে চলেছে তিন দলের প্রেসিডেন্টস কাপ ওয়ানডে টুর্নামেন্ট। নিছক প্রস্তুতিমূলক টুর্নামেন্ট হলেও, এতে থাকছে প্রতিযোগিতার আভাস।

সফলভাবে এ টুর্নামেন্ট আয়োজন করার পর ঘরোয়া ক্রিকেট শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে বিসিবি। এরই মধ্যে শোনা গেছে কর্পোরেট ক্রিকেটের কথা। এছাড়া বাকি রয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ, বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ও ন্যাশনাল ক্রিকেট লিগও। এগুলোর ব্যাপারেও ভাবছে বিসিবি।

কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট? করোনার কারণে খেলা বন্ধ হওয়ার সময় বিসিবির সামনে সবার আগে ছিল মুজিববর্ষের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। সেই সিরিজের ব্যাপারে কী ভাবছে বিসিবি? কবে নাগাদ এটি করতে চায় তারা? আগামী বছরের ১৭ মার্চ পর্যন্ত রয়েছে মুজিববর্ষ উদযাপনের সময়। এর মধ্যে কি আয়োজন করতে পারবে বিসিবি? এ বিষয়ে পরিকল্পনা কী?

এসবের উত্তর দিয়েছেন বোর্ডের প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন। বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন, ‘এখনও এটি (মুজিববর্ষের সিরিজ) আমাদের পরিকল্পনায় রয়েছে। কিন্তু আপনারা জানেন যে বিশ্বের সার্বিক পরিস্থিতির কারণে… মুজিব শতবর্ষ উদযাপনে আমাদের নিজস্ব কিছু পরিকল্পনা ছিল। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে, অনুকূলে থাকলে… আমরা কিন্তু সেটাকে এখনও আমাদের পরিকল্পনার বাইরে নিয়ে যাইনি। আমাদের পরিকল্পনা সেভাবেই আছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এটা আয়োজন করার ভাবনা আছে।’

স্থগিত হওয়ার আগে দুই দলের ক্রিকেটারদের নামও প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছিল বিসিবি। বিশ্ব একাদশে খেলার কথা ছিল কাইরন পোলার্ড, ক্রিস গেইল, ফাফ ডু প্লেসি, জনি বেয়ারস্টো, অ্যালেক্স হেলস, নিকোলাস পুরান, ব্রেন্ডন টেইলর, আদিল রশিদের মতো ক্রিকেটারদের। অবশিষ্ট এশিয়া একাদশে নাম ছিল তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোস্তাফিজুর রহমান, লিটন দাস, শিখর ধাওয়ান, রিশাব পান্ত, থিসারা পেরেরা, লাসিথ মালিঙ্গা রশিদ খান, মোহাম্মদ শামিদের। এক ম্যাচ করে খেলার কথা ছিল লোকেশ রাহুল ও বিরাট কোহলির।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »