যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘লরা’, ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞের আশঙ্কা

যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানা উপকূলে আঘাত হেনেছে প্রবল শক্তিশালী হারিকেন লরা। দেশটির স্থানীয় সময় মধ্যরাতে অঙ্গরাজ্যটির ক্যামেরন শহরে আছড়ে পড়েছে ক্যাটাগরি চার মাত্রার সামুদ্রিক ঝড়টি। এর প্রভাবে টেক্সাস-লুইজিয়ানা সীমান্ত এলাকায় ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চলতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার (এনএইচসি) জানিয়েছে, লুইজিয়ানায় আছড়ে পড়ার সময় হারিকেন লরার বাতাসের গতিবেগ ছিল প্রতি ঘণ্টায় ২৪০ কিলোমিটার (১৫০ মাইল/ঘণ্টা)। এটাই দেশটিতে চলতি বছরে আঘাত হানা সবচেয়ে শক্তিশালী ঝড়।
এনএইচসি বলছে, হারিকেন লরা বর্তমানে ক্যাটাগরি পাঁচের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। শক্তি সঞ্চয়ের মাত্রা অব্যাহত থাকলে এটি ঘণ্টায় ২৫৪ কিলোমিটারের বেশি গতিবেগে তাণ্ডব চালাতে পারে।
২০০৫ সালে নিউ অরলিন্সে প্রায় একই মাত্রার ঝড় ক্যাটরিনার আঘাতে দেড় হাজারেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছিলেন।
ইতোমধ্যেই হারিকেন লরার প্রভাবে লুইজিয়ানায় আচমকা বন্যা দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। প্রাণ বাঁচাতে টেক্সাস-লুইজিয়ানার অন্তত পাঁচ লাখ মানুষকে ঘর ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে বলা হয়েছে। ঝড়ের প্রভাবে উপসাগরীয় উপকূলটিতে ২০ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছাস হতে পারে বলে সতর্ক করেছে এনএইচসি।
সংবাদমাধ্যমসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ছবি ও ভিডিও ফুটেজে প্রবল বেগে বৃষ্টিধারার স্রোত উড়তে দেখা যায়। উপকূলীয় এলাকার আশপাশের রাস্তাঘাট ইতোমধ্যেই তলিয়ে গেছে। ঝড়ের আঘাত থেকে বাঁচতে স্থানীয়দের বাড়ির জানালাগুলো মোটা কাঠ দিয়ে ঢেকে দিতে দেখা গেছে।
মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, ঝড়ের আঘাতে লুইজিয়ানা ও টেক্সাসের অন্তত ২ লাখ ৮৫ হাজার মানুষ বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। মাত্র ৭২ ঘণ্টাও হয়নি মার্কিন উপকূলটিতে তাণ্ডব চালিয়ে গেছে আরেক সামুদ্রিক ঝড় মার্কো। এর প্রভাবে ক্যারিবিয়ান অঞ্চলে অন্তত ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

Rupantor Television

A IP Television Channel

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »